BIGtheme.net http://bigtheme.net/ecommerce/opencart OpenCart Templates

‘প্রথম’ হতেই হবে, not necessary

সেদিন এক বন্ধুর বাসায় দাওয়াতে ছিলাম। বাচ্চাটা মাশাল্লাহ দারুন ইন্টেলিজেন্ট – বয়েস মাত্র আট হবে কিন্তু কি দারুন ছবিও আঁকতে পারে। তবে বাচ্চার মা-র দেখলাম মন খারাপ, কারণ সে এবার পরীক্ষায় দ্বিতীয় হয়েছে, ২ নম্বরের জন্যে প্রথম হতে পারে নাই। মন খারাপ হতেই পারে, কিন্তু ঘুরে-ফিরে বারবার যখন ওই একই বিষয়ে তিনি আক্ষেপ করতে থাকেন, তখন কিছু কথা থেকে যায়।

 

একটা ক্লাসে ফার্স্ট মাত্র একজনই হতে পারে (যদি না আর কেউ সমান নম্বর পায়)। এখন আমরা সবাইই যদি আশা করি আমার ছেলেটাই কিংবা আমার মেয়েটাই ফার্স্ট হবে, তাহলে তো মুস্কিল। এটা যতোটা না বাচ্চার জন্যে, তার চাইতে বরং অন্যকে বলতে পারার জন্যে। আমরা অন্যদের বোঝাতে চাই যে আমার বাচ্চাই সেরা, একটু হলেও বুদ্ধি বেশি রাখে। আর এই করতে যেয়ে অনেক সময়েই ছোট্ট বাচ্চাগুলোর ওপর এক ধরনের মানসিক চাপ তৈরী করে ফেলি যা থেকে বের হতে কারোর কারোর অনেক সময় লেগে যায় আর অনেক সময় কেউবা তা থেকে বেরিয়েও আসতে পারে না।

আমার মনে আছে, ছোটবেলায় আমি ক্লাস সেভেন পর্যন্ত একটা মোটামুটি মানের স্কুলে পড়ালেখা করেছি। প্রতিবার বার্ষিক পরীক্ষার রেজাল্টের পর আমার বাবা বলতেন, ‘এই স্কুলের ফার্স্টের কি কোনো দাম আছে না কি!’ কাজেই, ফার্স্ট হয়েও সব সময় মনটা খারাপই থাকতো।

আমার পিঠাপিঠি বড় ভাইয়া অংক পরীক্ষায় সবসময়ই খারাপ করে আসতো, যতোটা না পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের দোষে, তার চাইতে বরং ‘খারাপ করলে বাসায় কি বলবে’ সেই ভয়ে। ইন্টারমিডিয়েট পর্যন্ত তার মধ্যে এই ভয়ের ব্যাপারটা কাজ করতো, ধমক দিয়ে কিছু জিজ্ঞেস করলে সেটা কখনোই ঠিকমতো বলতে পারতো না। অথচ আজ সে একজন চার্টার্ড একাউন্টেন্ট, ফাইন্যান্সিয়াল মডেল এক্সপার্ট এবং একটা মার্চেন্ট ব্যাঙ্কের ম্যানেজিং ডিরেক্টর।

পরীক্ষায় ‘প্রথম’ সবাই হবে না, হওয়া সম্ভবও না। কিন্তু বেসিকটা যদি ভালো হয়, তবে বাচ্চার ভবিষ্যত নিয়ে এতো টেনশনের কি!

আর ‘কম্পিটিশন’টা অন্যের সাথে না হয়ে বরং হওয়া উচিত নিজের সাথে। আমাদের বাচ্চা যদি এবার অংকে ৭০ পায়, তাহলে ওকে বলতে পারি পরেরবার যেনো এটাকে সে অতিক্রম করতে পারে। এভাবে এক সময় সে ঠিকই ‘ভালো’ থেকে ‘আরো ভালো’ তে পৌঁছাতে পারবে।

বাচ্চা কি শিখছে, কতোটুকু আনন্দ নিয়ে শিখছে সেটা দেখভাল করাটাই আমরা যারা অভিভাবক তারা যদি ঠিকমতো করতে পারি, তাদের মধ্যকার সৃষ্টিশীলতাকে জাগিয়ে তুলতে পারি, তবে তারা তাদের বাবা-মাকে ছাড়িয়ে অনেক দুর পর্যন্ত যাবেই যাবে।

‘প্রথম’ হতেই হবে, not necessary.

 

About M Murshed Haider, FCMI

M Murshed Haider, FCMI is a prominent Corporate Coach, Motivational Speaker and Writer. He helps organizations and individuals to achieve higher productivity by sharing experiences from his 12+ years of experience in different sectors of corporate world in home and abroad.

Check Also

মাস্টার পাসওয়ার্ড (Master Password)

অবশেষে, “মাস্টার পাসওয়ার্ড” (বাংলা ও ইংরেজি উভয় সংস্করণ) ফেব্রুয়ারীর ২৪ তারিখে বইমেলায় এসেছে। আপনার কপিটি ...

One comment

  1. Good

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *